বুড়ি বয়সে এত ঢং কিসের!’ লন্ডনে গিয়ে ছবি ছেড়ে ট্রোলের মুখে শ্রাবন্তী।

0
287

প্রতিদিন বিভিন্ন ধরনের ভিডিও আমরা ভাইরাল হতে দেখি। সারাদিনের বেশ খানিকটা সময় আমরা সোশ্যাল মিডিয়াতে ব্যয় করে থাকি এই সমস্ত ভাইরাল ভিডিওগুলি দেখে। করোনা মহামারীর সময় যখন সারা দেশজুড়ে লকডাউন চলছিল সেই সময়ে সোশ্যাল মিডিয়ার চাহিদা এবং গুরুত্ব দুটোই বেড়ে যায়।

গৃহবন্দী মানুষ তখন নিজেকে ব্যস্ত রাখতে সোশ্যাল মিডিয়ার বিভিন্ন কার্যকলাপ করে পোস্ট করতে শুরু করে। নিমেষের মধ্যে সেই সকল পোস্ট ভাইরাল হয়ে গিয়ে বেশ কিছু ইনকাম শুরু হয়।বর্তমান এই যুগে সবার হাতেহাতে বিনোদন বলতে আমাদের মাথায় একটাই আধুনিক প্ল্যাটফর্মের কথা মনে পড়ে সেটি হল,

সোশ্যাল মিডিয়া। হ্যা এই সোশ্যাল মিডিয়াই এখন আমাদের বিনোদন খেলাধুলা, গানবাজনা, সিনেমা, খবরাখবর প্রভৃতি আরও অনেক কিছু উপভোগ করার বিপুল ব্যাবহৃত এবং সহজ মাধ্যম হয়ে উঠেছে। ছোটো থেকে বড়ো প্রায় সবার হাতেই এখন এই মাধ্যমটি পৌঁছে গেছে।শ্রাবন্তী চট্টোপাধ্যায়। বলিউডের মিষ্টি নায়িকা তিনি।

শ্রাবন্তী নানা কারণে থাকেন চর্চায়। তাঁর ব্যক্তিগত জীবন থেকে অভিনয় সব কিছু নিয়েই হয় চর্চা। প্রসঙ্গত শ্রাবন্তীর তৃতীয় বিয়েও সুখের হয়নি। প্রথমবার ভালবেসে বিয়ে করেছিলেন পরিচালক রাজীবকে। তাঁর ও রাজীবের ছেলে ঝিনুক। কিন্তু সে বিয়ে কবেই ভেঙেছেন তিনি। এর পরেও দু-দুবার বিয়ে করেছেন তিনি।

কিন্তু কোনওটাই সুখের হয়নি।সম্পর্কে মনোমালিন্য বা মতের মিল না থাকলে তা বয়ে নিয়ে যাওয়ার কোনও মানে নেই। বরং দূরে থেকে ভাল থাকাটাই আসল কথা। শ্রাবন্তী সাহসী।সম্পর্ক থেকে বেরিয়ে আসতে বার বার সাহস দেখিয়েছেন তিনি। তাঁর রাখ ঢাক নেই। জলের মতো পরিষ্কার তিনি।

টলিউডে শ্রাবন্তীকে মিষ্টি মেয়ে বলেই সকলে জানেন। শুধু মিষ্টতা নয় , অভিনয়েও দক্ষ তিনি। সেই ছোট্ট বয়শ থেকেই টলিউডে অভিনয় করছেন তিনি। আপাতত ছেলে ঝিনুককে নিয়ে তাঁর সংসার। ছেলেও বড় হয়েছে অনেকটা। মায়ের সব থেকে ভাল বন্ধু সে। বেশির ভাগ সময় শ্রাবন্তীর বিয়ে চর্চায় উঠে আসে।

মানুষের যেন আগ্রহের শেষ নেই। এমনকি শ্রাবন্তী কী পোশাক পরছেন তা নিয়েও চর্চার শেষ নেই। সম্প্রতি শ্রাবন্তী তাঁর ইনস্টাগ্রাম হ্যান্ডেলে কিছু ছবি শেয়ার করেছেন।সেখানে দেখা যাচ্ছে একটি সাদা রঙের শর্ট ড্রেস পরেছেন তিনি। বেড়াতে গিয়েই এই পোশাক পরেছেন নায়িকা।

আর তা নিয়েই শুরু যত কাণ্ড। নেটিজেনরা নানা মন্তব্যে ভরিয়ে দিলেন। যদিও এই ছবিতে সাংসদ অভিনেত্রী মিমি চক্রবর্তীও কমেন্ট করেছেন। তিনি লাভ সাইন দিয়েছেন এই ছবিতে। নেটিজেনদের অনেকেই প্রশংসা করেছেন তাঁর। অন্য দিকে এক নেট নাগরিক লিখেছেন, “নগ্ন হয়ে দাঁড়িয়ে আছ? তাই না?”

আবার কেউ লিখেছেন, “এই পোশাকে একেবারেই মানাচ্ছে না।” আবার একজন লিখেছেন, “৪ নম্বর বরের অপেক্ষায়।” এমন নানা কমেন্ট। যাকে সমালোচনাই বলা চলে। তবে শ্রাবন্তী যে সাদা ড্রেসটি পরেছেন, তা কিন্তু হামেশাই অনেককে পরতে দেখা যায়! কিন্তু তখন এত কথা হয় না। তবে কী শুধু শ্রাবন্তী বলেই এত চর্চা? উঠছে প্রশ্ন!

ছবিটি ইনস্টাগ্রামে তার sarbanti.smile নামক ইনস্টাগ্রাম একাউন্ট এ পোস্ট করা আছে।হাজারেরও বেশি মানুষ জন ছবিটি পছন্দ করতেন।৭১ হাজারেরও বেশি মানুষ ভিডিওটি লাইক করেছেন আশা করি ভালো লাগবে।

BÌNH LUẬN

Please enter your comment!
Please enter your name here